এইড বাংলাদেশ শিক্ষা,স্বাস্থ্য  উন্নয়ন সোসাইটি

এর সংঘ স্মারক

ক) এই সোসাইটির নামঃ এইড বাংলদেশ স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও উন্নয়ন সোসাইটি 
খ) রেজঃ র্কাযালয়ঃ রানীগঞ্জ বাজার, ঘোড়াঘাট দিনাজপুর।
লিয়াজাে অফিসঃ ১২/৬, সলিমুল্লাহ রোড, মোহাম্মাদপুর, ঢাকা-১২০৭।


নির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবকে প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য সমূহ বাস্তবায়নরে লক্ষ্যে র্কম এলাকা ব্রাঞ্চ অফিস ও লিয়াজো  অফিস খোলা যাবে এবং হেড অফিস বা অন্যান্য অফিসের ঠিকানা প্রয়োজনে স্থানান্তর করা যবে।
গ) র্কম এলাকাঃ সমগ্র দিনাজপুর জেলা ব্যাপী।
ঘ)  উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যঃ এইড বাংলাদেশ  স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও উন্নয়ন সোসাইটির র্আতমানবতার সেবায় নিয়োজিত একটি কল্যাণমুখী, অরাজনৈতিক, অলাভজনক, দাতব্য বেসরকারি সোসাইটি নিম্নে র্বণতি সকল উদ্দশ্যেবলী বাস্তবায়নরে লক্ষ্যে সরকার/ সংশ্লষ্টি র্কতৃপক্ষরের/ উপযুক্ত র্কতৃপক্ষরের অনুমতি গ্রহণরে পর র্কাযক্রম আরম্ভ হইবে এবং অ্যাক্ট ১৮৬০ এর ২০ ধারার বি্ধানের পরপিন্থী  উদ্দেশ্য/উদ্দেশ্যবলী অকার্যকর বলিয়া গণ্য হইবে।
১। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও উন্নয়ন এই তিনটি ক্ষেত্রে নানাবিধ র্কাযক্রম বাস্তবায়ন।
২। দিনাজপুররে শিক্ষার মান উন্নতি কল্পে র্কাযকারী পদক্ষেপ গ্রহণ। এ ক্ষেত্রে এইড বাংলাদেশ প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ  মাধ্যমিক এবং বিশবি্দ্যায় র্পযায়ে ছাত্র-ছাত্রীদর মেধা বিকাশের জন্য বিভিন্ন কাজ করবে।
৩। শারীরিক ও মানসিক  প্রতবিন্ধীদরে সহায়তামূলক র্কমসূচী বাস্তবায়ন।
৪। প্রাথমকি স্বাস্থ্য পরর্চিযা, স্বাস্থ্য শিক্ষা, মা ও শিশু মৃত্যুরোধ, ডাইরিয়া, স্যানিটেশন, নউিট্রশিন, সমন্বতি টিকা দান র্কমসূচী(ই পি আই) বাস্তবায়ন ও রোগ প্রতিরোধ সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিনামুল্যে র্কাযক্রম গ্রহণ।
৫। দিনাজপুররে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নততি অবকাঠামো উন্নয়ন ও দারদ্রি বিমোচনের সার্বিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা।
৬। দিনাজপুররে দরিদ্র জনগোষ্ঠির শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় সহায়তা করা। 
৭। সরকারী, বেসরকারী ব্যক্তি মালিকানা অথবা অন্য কোন মালিকানায় পতিত জমির/ জায়গার সদব্যবহার করার লক্ষ্যে কাজ করা। 
৮। ছাত্র-ছাত্রী অথবা সাধারণ জনগনের মধ্যে থেকে একদল সমাজ সবেক দিয়ে র্কাযক্রম বাস্তবায়ন করা র্অথাৎ সকল মানুশের অংশ গ্রহণ নিশ্চত করা।
৯। শিক্ষার মান উন্নয়ন। 
১০।এতিম,অসহায় ও দরিদ্র মানুষের মধ্যে যে কোন জনহিতকর বা দাতব্য র্কাযক্রম পরিবালনা করা। 
১১। অবহেলিত দারিদ্র পীড়তি মানুষের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী ও শীত বস্ত্র বিতরণ র্কাযক্রম গ্রহণ। 
১২। অশিক্ষিত ও র্অধশিক্ষিত মানব গোষ্ঠীকে উন্নত পদ্ধিতে শিক্ষা র্কাযক্রম গ্রহণরে মাধ্যমে র্কম দক্ষতার বৃদ্ধির উদ্দেশ্য প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা  গ্রহণ।
১৩। জনসাধারণকে দারিদ্র জনগোষ্ঠীকে মানব সমাজকে উপযোগতিা মূলক/ তাহাদের হিতকর র্কাযক্রম সর্ম্পকে অবহিত করা। 
১৪। সাধারণ মানুষের( শিক্ষিত/ র্অধশিক্ষিত) মধ্যে পাঠাগার ও র্ধমীয় শিক্ষার জন্য পাঠকক্ষ  প্রতষ্ঠিা করে পাঠাভ্যাস গড়ে তলার ব্যাপারে সচতেন করা। 
১৫। উপরে উল্লখিতি র্কাযক্রম ছাড়াও এইড বাংলাদেশ এর সাধারণ প্ররিশোধ সদ্ধিান্তক্রমে শিক্ষা , স্বাস্থ্য ও উন্নয়ন এই তিন শাখায় আরও র্কাযক্রম গ্রহণ করতে পারব। বিভিন্ন সেবামুলক সংগঠনকে আর্থিক সাহায্য দিয়ে তাদের মাধ্যমে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও উন্নয়নমূলক র্কাযক্রম পরচিালনা করা। 
১৬।দারিদ্র  জনগোষ্ঠীকে আর্থিক  সাহায্য দিয়ে তাদের  আত্মনর্ভিরশীল করে গড়ে তোলা।.

১৭। যেকোনো সংকটময় মুর্হূতে ( বন্যা, র্ঘূণঝিড়, খরা, মঙ্গা ইত্যাদি) ত্রাণ ও পুর্নবাসন র্কাযক্রম( সংগঠন নিজে ও সেবামুলক সংগঠনের মাধ্যমে পরচিালনা করা। 
১৮। সোসাইটির র্স্বাথে সব ধরনের র্শতের ভত্তিতে আর্থিক  সাহায্য, আর্থিক  মঞ্জুরী, দান, সহযোগতিা, উপকার, চাঁদা গ্রহণ,( বৈদেশিক আর্থ দান, মঞ্জুরী, সাহায্য ও সহযোগতিার ক্ষেত্রে ১৯৭৮ এর স্বচ্ছোসবেী (তৎপরতা) রগেুলশেন র্অডনিন্সে নং-১৯৭৮ প্রযোজ্য) এবং উক্ত দান। মঞ্জুরী, সাহায্য ও সহযোগিতা, উপকার গ্রহণের মাধ্যমে বিভিন্ন্ তহবিল সংগ্রহ র্অজন ও সম্পদ ও সম্পত্তরি রক্ষণাবক্ষেণ। 
ঙ) ফাউন্ডশেনের আয় কেবলমাত্র উহার  উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য ব্যয় করা যাবে উহার কোন আয় সদস্যদের মধ্যে লাভ বা বোনাস বা বেতন বোনাস, পকেটমানি সন্মানী আকারে বণ্টন করা যাবে না।
চ) অবসায়নঃ যদি কোন সুনির্দিশঠ কারণে প্রতিষ্ঠানের মোট সদস্যের পাঁচ ভগের তিন ভাগ সদস্য সংস্থার অবসান চান তবে যথানিয়মে এবং ফাউন্ডশেনের রেজস্ট্রিশেন আইনের বিধান অনুযায়ী উহা অবলুপ্ত করা যাবে অবলুপ্তকালে দায়-দনো প্ররিশোধান্তে ফাউন্ডশেনের কোন উদ্বৃত্ত সম্পদ থাকিলে উহা এই ফাউন্ডশেনের উদ্দশ্যের সমতুল্য উদ্দেশ্য সম্পন্ন অন্য কোন সংগঠন বা সোসাইটির নিক্ট হস্তান্তর করা হইবে কোন অবস্থায়ই উক্ত বিষয় সম্পদ ফাউন্ডশেনের সদস্যগণের মধ্যে বণ্টন করা যাইবে না।
 
           
 কমিটি  (২০১৪-২০১৬)